আমেরিকায় লামাকাজির শাপলা বেগমের অস্বাভাবিক মৃত্যু

জুন ১৩ ২০২২, ২১:৩৬

আমেরিকার নিউজার্সিতে নিজ ফ্ল্যাটে এক বাংলাদেশি নারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয় পুলিশ। স্থানীয় সময় রবিবার (৩ জুন) বিকেলে নিউজার্সির এলভান এভিনিউ এর পিটারসান ফ্ল্যাটে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত অবস্থায় শাপলা বেগমর (২২) মৃতদেহ উদ্ধার হয়। সোমবার (১৩ জুন) তার মরদেহ দেশে আসলে পারিবারিকভাবে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

শাপলা বেগম সিলেটের বিশ্বনাথ লামাকাজির বাসিন্দা আব্দাল হোসেনের স্ত্রী। আমেরিকায় সাধারণ কর্মী হিসেবেই কাজ করতেন তিনি। গেলো ৩বছর ধরে শাপলা বেগম পরিবার সহ নিউজার্সিতে বসবাস করছিলেন। ৪ বছরের মেয়ে ফারিহাকে নিয়েই ছিলো তাদের সুখের সংসার।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত শাপলা বেগমের স্বামী আব্দাল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  পুলিশের ধারণা, খুনের সঙ্গে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজনের সম্পর্ক আছে। পারিবারিক কারণেও শাপলা বেগমকে খুন করা হতে পারে।
স্থানীয় গণমাধ্যমের তথ্য অনুসারে, হত্যার প্রকৃত কারণ খতিয়ে দেখতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। স্বামী আব্দাল হোসেনকে অপকর্ম করতে বাধা দেয়ায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

আবার মৃত নারীর মা-বাবার সন্দেহের তালিকায় তার স্বামী মো: আব্দাল হোসেন ও স্বামীর মা মিনারা বেগম, ভাই মো. আক্তার হোসাইন, মো. কামাল হোসাইন, মো. জামাল হোসাইন, মো. মারজান হোসাইন ও মামা নজরুল ইসলাম এর হাত রয়েছেন।

শাশুড়ির অভিযোগ, তার মেয়ে জানতে পেরেছিল স্বামীর বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে।স্বামী সবসময় টাকার জন্য চাপ দিতেন স্ত্রীকে ,টাকা না দেওয়ায় তাই তার খুন করা হয়েছে।

কিছু দিন আগেই নিউজার্সিতে এসেছেন শাপলা বেগম। তার স্বামীর অত্যাচারের সইতে না পেরে স্বামীর বাসা থেকে চলে এসেছে নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে। সেখানে এসেও স্বামী এসে বিভিন্ন পাঁয়তারা করে সমাধান হওয়া এবং তাদের সাথে থাকা হয় এবং সর্বশেষ মেয়ের জন্মদিনে শাপলা বেগমকে হত্যা করে তার স্বামী। পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক বক্তব্য দিয়েছে স্বামী তার স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যা করেছেন।