raising sylhet
ঢাকারবিবার , ২৪ মার্চ ২০২৪
  1. অর্থনীতি
  2. আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আরো
  5. খেলার খবর
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. দেশের খবর
  10. ধর্ম পাতা
  11. পরিবেশ
  12. প্রবাস
  13. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  14. বিজ্ঞান প্রযুক্তি
  15. বিনোদন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কালোমেঘে সতর্ক থাকার বার্তা:কালবৈশাখী ঝড় সঙ্গে নেমে আসছে শিলাবৃষ্টিও

rising sylhet
rising sylhet
মার্চ ২৪, ২০২৪ ৯:০৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

কালবৈশাখী ঝড় সঙ্গে নেমে আসছে শিলাবৃষ্টিও।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, শিলাবৃষ্টি থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার তেমন কোনো উপায় নেই। প্রকৃতিতে গরম আবহাওয়া বিরাজ করলে তা হবেই। তবে সব সময় বা অধিকাংশ সময় নেমে আসবে এমনটা নয়।

প্রতি বছর এই শিলাবৃষ্টিতে মানুষের হতাহতের তেমন কোনো দুঃসংবাদ বয়ে না আনলে ফসলের কম-বেশি ক্ষতি হয়। বিশেষ করে আম চাষিদের ব্যাপক চিন্তায় ফেলে এই বৃষ্টি।

কালোমেঘে সতর্ক থাকার বার্তা:আবহাওয়াবিদরা বলছেন, কালোমেঘ মানেই সতর্কতা অবলম্বর করা উচিত। কেননা, এই মেঘ থেকেই কালবৈশাখী ঝড়, বজ্রঝড়ের সৃষ্টি হয়। আর দশটি কালো মেঘের একটি থেকে হতে পারে শিলাবৃষ্টি।

আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ বলেন, বৃষ্টির মেঘ দু রকম। বর্ষায় মেঘ থাকে সাদা। আর প্রাক বর্ষায় কালো। এই মেঘ আবার উলম্বভাবে লম্বা হয়। আমরা জানি বায়ুমণ্ডলের যত ওপরে ওঠা যায়, তত ঠাণ্ডা পরিস্থিতি বিরাজ করে সেখানে। মেঘ যখন আইস লেবেলে পৌঁছে যায় তখনই শিলাবৃষ্টির সৃষ্টি হয়। আর কেবল কালো মেঘই উলম্ব দিকে ১২ থেকে ১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত ওঠে যায়।

তিনি বলেন, আমাদের পরামর্শ হচ্ছে কালো মেঘ দেখলেই নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে হবে কিংবা সাবধান হতে হবে। শিলাবৃষ্টি সাধারণত প্রাণের তেমন ক্ষতি না করলে কালো মেঘের বজ্রপাতে ব্যাপক ক্ষতি করে। এছাড়া বড় আকারের শিলা বিপদের কারণ হতে পারে। তাই কাল বৈশাখীর এই সময়য়ে সবার সাবধান হওয়া উচিত, বিশেষ করে যারা মাঠে কাজ করেন।

১২ কিমির বেশি উঁচু কালোমেঘই মূল কারণ:প্রকৃতিতে লো প্রেশার অর্থাৎ বাতাস নিচের দিকে গরম হলে তা ওপরের দিকে ওঠতে থাকে। আর আইস লেবেল হচ্ছে ১২ হাজার ফুট। লো প্রেশার শুরু হলে কালোমেঘ উলম্ব দিকে ১২ কিলোমিটারের বেশি ওপরে ওঠে যায়। তখন বাতাসের সঙ্গে থাকা জলীয় বাষ্প বরফে পরিণত হয়। আর বরফে পরিণত হওয়ার পরপরই তা আবার নিচের দিকে নামতে থাকে। এক একটা বরফের টুকরো আধাকেজি পর্যন্ত হতে পারে। নিচের নামার সেগুলো আবার বায়ুমণ্ডলে সংঘর্ষের কারণে টুকরো টুকরো হয়ে মাটিতে পড়ে।

মার্চ থেকে মে সময়কাল:শিলাবৃষ্টির সময়কাল হচ্ছে প্রাক বর্ষা। অর্থাৎ মার্চ থেকে মে মাসেই এই বৃষ্টি হয়। বর্ষায় শিলা পড়ে না। এই সময়টাতে হঠাৎ বায়ুমণ্ডল গরম হয়ে ওঠায় জলীয় বাষ্প ওপরে ওঠে বরফে পরিণত হলেই কেবল তা নিচে নেমে আসে।

গত কয়েকদিন ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে শিলাবৃষ্টি হলেও আগামী তিনদিনে তেমন কোনো আভাস নেই বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ শাহানাজ সুলতানা। তিনি জানান, এই সময়ে দেশের সব বিভাগেই কালবৈশাখী ঝড় হবে। তবে আবহাওয়ার পরিবর্তন হলে হঠাৎ শিলাবৃষ্টিও হতে পারে।

৯৬ বার পড়া হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।