raising sylhet
ঢাকামঙ্গলবার , ২৮ মার্চ ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. অর্থনীতি
  2. আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আরো
  5. খেলার খবর
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. দেশের খবর
  10. ধর্ম পাতা
  11. পরিবেশ
  12. প্রবাস
  13. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  14. বিজ্ঞান প্রযুক্তি
  15. বিনোদন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জুড়ীর বেলাগাঁও গ্রামের রাস্তায় ব্যাপক ফাটল

rising sylhet
rising sylhet
মার্চ ২৮, ২০২৩ ৭:৫০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের হাওর তীরবর্তী বেলাগাঁও গ্রামের রাস্তায় ব্যাপক ফাটল দেখা দিয়েছে। ফাটলটি পর্যায়ক্রমে বৃদ্ধি পাওয়ায় রাস্তাটি নদীতে বিলীণ হতে চলেছে। এতে করে এ এলাকার ৬/৭ হাজার অধিবাসীসহ কয়েক হাজার কৃষক দুশ্চিন্তায় ভোগছেন।

বিশেষ করে এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকির চলমান রবিশষ্য আনয়ন ও কিছুদিন পর বোরো ধান স্থানান্তর নিয়ে চিন্নিত হয়ে পড়েছেন মালিক-কৃষক-শ্রমিক।

সরেজমিনে জানা যায়, উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নে জুড়ী-কুলাউড়া সড়কের কন্টিনালা নদীর পশ্চিম দিকে গরেরগাঁও হয়ে বেলাগাঁও (পশ্চিম পার) গ্রামের রাস্তা বয়ে গেছে। রাস্তাটি গরেরগাঁও, কাটানালারপার, বেলাগাঁও, সোনাপুর ও রাবার ড্যাম হয়ে হাকালুকি হাওর পর্যন্ত চলে গেছে। এ সড়কে উক্ত এলাকার ৬/৭ হাজার বাসিন্দা নিত্য চলাচল করেন। হাজারো শিক্ষার্থী বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় যাতায়াত করেন। তাছাড়া এশিয়ার বৃহত্তম এ হাওরে উৎপন্ন মাছ, বোরো ধান, শীতকালীণ সবজি ও রবিশষ্য এ সড়ক দিয়ে পরিবহন করা হয়।

ইতিমধ্যে কন্টিনালা নদীর পশ্চিম তীরবর্তী এ সড়কের বিভিন্ন অংশে ছোট ছোট ভাঙন দেখা দিয়েছে। গত ৩/৪ দিন থেকে উক্ত সড়কের গরেরগাঁও এলাকায় ফাটল দেখা দেয়। প্রতি নিয়ত ফাটল বৃদ্ধি পেতে থাকে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ফাটলটি ব্যাপক আকার ধারণ করায় জন ও যান চলাচল ঝুঁকিপূর্ন হয়ে পড়েছে। যে কোন সময় সড়কটি নদী গর্ভে বিলীণ হওয়ার আশংকা করা হচ্ছে। এমতাবস্থায় এ এলাকায় শতাধিক বাড়ীঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে হুমকির মূখে।

স্থানীয়রা জানান, জুড়ী নদীর শাখা কন্টিনালার পশ্চিম পার গরেরগাঁও হতে রাবার ড্যাম রাস্তার এক কিলোমিটার রাস্তা ২০১৫-১৬ সালে পাকাকরন করা হয়। বাকী রাস্তা কাঁচা। এই রাস্তা দিয়ে গরেরগাঁও একাংশ, কাটানালারপার, বেলাগাঁও ও সোনাপুর গ্রামের লোকজন চলাচল করেন। প্রতিদিন অসংখ্য যানবাহন যোগে এ এলাকার বাসিন্দারা তাদের নিত্য পন্য আনা-নেয়া করেন। সেই সাথে হাকালুকি হাওরের যাতায়াতের অন্যতম এই রাস্তা দিয়ে হাওরে উৎপাদিত মাছ, বোরো ধান, মিষ্টি কুমড়া, আলু, বাদাম, ভূট্রা সহ কৃষিপন্য পরিবহন করা হয়। ফাটলের সাথে রাস্তাটি নদীতে বিলীণ হতে যাওয়ায় রবি শস্য ও বোরো ধান পরিবহন নিয়ে লোকজন মহা সংকটে পড়েছেন।

স্থানীয়রা দ্রুত ভাবে রাস্তাটির ভাঙ্গন ঠেকানোর উদ্যোগ নিতে প্রশাসনের নিকট জোর দাবী জানান।

মঙ্গলবার রাস্তাটি পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রঞ্জন চন্দ্র দে ও উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী ননী গোপাল দাস।

জায়ফরনগর ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বলেন, এই রাস্তা দিয়ে হাজার হাজার মানুষের চলাচল। পাশাপাশি হাকালুকিতে যেসকল কৃষি পন্যের চাষাবাদ হয় সেগুলো পরিবহনের জন্য এ রাস্তা দিয়ে গাড়ি চলাচল করে। রাস্তাটি সংস্কারের জন্য আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেছি।

এ ব্যাপারে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের (এলজিইডি) উপজেলা প্রকৌশলী ননী গোপাল দাস বলেন, আমি ও ইউএনও স্যার রাস্তাটি দেখে এসেছি। দ্রুত একটি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে নদী ভাঙ্গন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকল্প প্রয়োজন। সেটির জন্য ও আমি এলাকাবাসীর সাথে পরামর্শ করেছি।

৪৮ বার পড়া হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।