raising sylhet
ঢাকাশুক্রবার , ১৩ জানুয়ারি ২০২৩
  1. অর্থনীতি
  2. আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আরো
  5. খেলার খবর
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. দেশের খবর
  10. ধর্ম পাতা
  11. পরিবেশ
  12. প্রবাস
  13. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  14. বিজ্ঞান প্রযুক্তি
  15. বিনোদন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দাদার শখ পূরণে নাতি হেলিকপ্টারে বউ আনলেন

rising sylhet
rising sylhet
জানুয়ারি ১৩, ২০২৩ ৫:৫৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রাইজিংসিলেট-দাদার শখ পূরণে নাতি হেলিকপ্টারে বউ আনলেন, শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকা এয়ারপোর্ট থেকে একটি হেলিকপ্টারে চড়ে সুজানগর সরকারি পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এসে হাজির হন বর আশিকুর রহমান পাপ্পু। এসময় তাদের সঙ্গে দাদা জবানী সরদারসহ পরিবারের কয়েকজন সদস্য ছিলেন।

দাদা জবানী সরদারের শখ পূরণ করতে হেলিকপ্টারে চড়ে বউ আনলেন নাতি আশিকুর রহমান পাপ্পু। তিনি পেশায় একজন ইঞ্জিনিয়ার। ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে উত্তরের জেলা পাবনার সুজানগরে।

আশিকুর রহমান পাপ্পু সুজানগর পৌর সদরের চর সুজানগর মহল্লার ফজলুর রহমানের ছেলে আর কনে নুসরাত জাহান জীম ঢাকার গাজিপুরের বাসিন্দা টুটুল শেখের মেয়ে। তিনি বিএ অনার্সের ছাত্রী।

হেলিকপ্টারে নতুন বউ আসছে এমন খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তাদের আত্মীয়স্বজন, নারী, শিশুসহ নানা বয়সী উৎসুক মানুষ আগে থেকেই ভিড় জমায় স্কুলের মাঠে। বর-কনে হেলিকপ্টার থেকে নামার পর তাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে বরণ করে নেন বর পক্ষের স্বজনরা। পরে তাদের মাইক্রোবাসে করে বাড়িতে নেয়া হয়।

ছেলের চাচা পাবনা পৌর এলাকার চর সুজানগর মহল্লার বাসিন্দা হেলাল উদ্দিন জানান, ৬ থেকে ৭ মাস আগে আমার ভাতিজা পাপ্পুর বিয়ে হয়। বিয়ের পর মেয়ে তাদের বাড়িতেই ছিল। শুক্রবার তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে ছেলের বাড়িতে নিয়ে আসা হলো। হেলিকপ্টারে করে বউ আনার বিষয়ে আমরা খুব আনন্দিত।

বর-কনেকে বরণ করতে মাঠে উপস্থিত ছিলেন ছেলেপক্ষের আত্মীয়-স্বজনরা। এ সময় ছেলের চাচী শাহনাজ খাতুন, ভাবী অনামিকা নাসরিন ও চাচাতো বোন তুলি খাতুন বলেন, হেলিকপ্টারে করে বউ আনছে। আমরা তাদের ফুল দিয়ে বরণ করেছি। প্রথম হেলিকপ্টারে বউ আনার ঘটনা স্বচক্ষে দেখতে পেরে খুব খুশি।

এ বিষয়ে বর আশিকুর রহমান পাপ্পু বলেন, আমি যখন খুব ছোট ছিলাম, তখন থেকেই আমার দাদার খুব ইচ্ছা যে আমি যেনো হেলিকপ্টারে বউ নিয়ে আসি। তার সেই শখ পূরণ করতেই মুলত এ আয়োজন। দাদার ইচ্ছা পূরণ করতে পেরে আমি খুব আনন্দিত। হেলিকপ্টারে দাদাও আমার সাথে ছিলেন। পরিবারের সবার সম্মতিও ছিল হেলিকপ্টারে বিয়ে করার। সবমিলিয়ে খুব আনন্দ হয়েছে।

আশিকুর রহমান পাপ্পুর দাদা জবানী সরদার বলেন, পাপ্পু যখন ছোট ছিল তখন থেকেই বলতাম তুই বিয়ে করে হেলিকপ্টারে বউ আনবি। আমার নাতি বউয়ের বাড়িও ঢাকা। চিন্তা করলাম হেলিকপ্টারে তো নিয়ে আসা যায়। নাতি বউয়ের সঙ্গেও আলাপ করলাম তোকে হেলিকপ্টারে নিয়ে আসবো। শুনে সেও খুব খুশি হয়। এভাবেই হেলিকপ্টারে নাতি ও তার বউকে নিয়ে আসলাম। নিজের একটা শখ পূরণ করতে পেরে আমারও খুব ভাল লাগছে।

 

 

৫২ বার পড়া হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।