শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১২:৫৪ পূর্বাহ্ন

News Headline :
চা বাগানের মেয়ে খায়রুন চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী নাগরিক সেবা নিশ্চিত না করে ট্যাক্স বাড়ানোর লাফালাফি শুভ লক্ষণ নয়- কবীর সোহেল পার্বত্য চট্টগ্রাম এবং মিয়ানমারকে নিয়ে একটি খ্রিস্টান রাষ্ট্র বানানোর ষড়যন্ত্র চলছে-প্রধানমন্ত্রী প্রতিবন্ধী শিশুসন্তানকে বিষ খাইয়ে হত্যার অভিযোগে বাবা ও মাকে গ্রেফতার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে পারে তৃতীয় ধাপে সিলেটের তিন উপজেলায় নির্বাচনে প্রার্থী বেশি বেনজীর আহমেদের সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ বন্দরবাজারে নকল স্বর্ণ দিয়ে প্রতারণা চক্রের ৩ সদস্য আটক রুশ বাহিনী ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভে সরাসরি হামলা করেছে চিনিসহ এক চোরাকারবারিকে আটক
ফুটপাতে উপচেপড়া ভিড়

ফুটপাতে উপচেপড়া ভিড়

সাপ্তাহিক ছুটি আর এতে রাজধানীর মিরপুরের ফুটপাতে উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

শুক্রবার (৫ এপ্রিল) রাজধানীর অন্যতম জনবহুল এলাকা মিরপুরের-১০ নম্বর গোলচত্বর ও আশপাশের ফুটপাত বাজার, মিরপুর-১ নম্বর গোলচত্বর ও মিরপুর-২ এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

মিরপুরের ফুটপাতে দোকানগুলোতে পরিধেয় পণ্যের সাজিয়ে বসেছেন ব্যবসায়ীরা। মূলত কম আয়ের মানুষের ঈদ কেনাকাটাকে সামনে করে এসব দোকানকে সাজিয়েছে।

মানুষ কিনবে এমন সব পণ্যই এসব দোকানে মিলছে। লোকে লোকারণ্য ফুটপাত।  

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেল, যারা ফুটপাতে বাজার করতে এসেছেন সকলেই কিছু না কিছু কিনছেন। কেউ একাধিক পণ্য কিনছে। একাধিক দোকান ঘুরে যাচাই-বাছাই করে দরদাম করে কিনছেন।  এসব ক্রেতাদের দুই-তৃতীয়াংশ তুলনামূলক কম আয়ের শ্রমজীবী নারী-পুরুষ। ক্রেতাদের মধ্যে রয়েছেন ছাত্র-ছাত্রী, গৃহবধূ, বাড়ির কর্তা ব্যক্তিও।

আর দোকানগুলোতে তুলনা বেশি দামের পণ্যের দোকানও রয়েছে। এ ধরনের বড় বাজারটি রয়েছে মিরপুর-১ এর সিনেমা হল মার্কেটের আশপাশের মার্কেটগুলোতে। এখানকার আড়ংয়ের দোকানে সবচেয়ে বেশি ভিড় দেখা গেছে। এসব দোকানে কেনাকাটা করে বাসায় ফেরার সময় অনেকে ফুটপাত থেকেও কিনছেন।

আমিরুল ইসলাম স্ত্রী ও সাত-আট বছরের এক ছেলেকে নিয়ে কেনাকাটা করছেন। বললেন, ঈদে আমার ১০-১২ জনের জন্য কিনতে হয়। এই বাজারেই সুবিধা হয়। আজ তিনটায় ছুটি হয়েছে, আজকেই ঈদ মার্কেটিং শেষ করব। ছুটি হলেই বাড়ি রওনা দেব।

কথা হয় মিরপুর-১০ এর পানির ট্যাঙ্কি ফুটপাতে বাজার করতে আসা আসমা খাতুনের সঙ্গে। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। বাবা-মাসহ অন্যান্য পরিবারের সবার জন্য কাপড়, চুড়ি ও প্রসাধনী সামগ্রী কিনেছেন। পাশের ফুটপাতের থান কাপড়ের দোকান থেকে কাপড় কেনার জন্য ঘুরে ঘুরে পছন্দ করছেন।

আসমা বলেন, এখানে যেমন হরেক রকমের কাপড় পাওয়া যায়, আবার দামও একটু সাশ্রয়ী। আজকে ছুটির দিনে বাজার করতে আসব বলে ঠিক করে রেখেছিলাম, আজ এলাম। ভালোই লাগছে।

এদিকে ঈদের বিক্রিতে দোকানদারদের অধিকাংশ খুশি। মিরপুর-১০ এর  বিক্রেতা আমজাদ হোসেন বলেন, বিক্রি ভালো হচ্ছে ইনশাআল্লাহ। এবার ঈদের আগে চাকরিজীবীরা বেতন, বোনাস দুইটাই পেয়েছেন। মানুষের হাতে টাকা আছে, কেনাকাটায়  এর প্রভাব পড়ছে। তবে এখনো বিক্রি হওয়ার সময় আছে, বাকি কদিনে দেখা যাক কি হয়।

৬৪ বার পড়া হয়েছে।





© All rights reserved © risingsylhet.com
Design BY Web Home BD
ThemesBazar-Jowfhowo