ভোট জালিয়াতির প্রতিবাদ সভায় ছাত্রলীগের হামলায় আহত ব্যবসায়ী

জানুয়ারি ০৭ ২০১৯, ১৫:০১

রাইজিং ডেস্ক :: সাধারণ জনগনের অভিযোগ, বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ সরকারের ভোট কারচুপি, জালিয়াতি, ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিং, মিডিয়া ক্যু সকল বিষয়কে ছাপিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ছিল ভোটের আগের রাতে ভোট বাক্স ভরে রাখার নৈশকালীন নির্বাচনের নতুন কীর্তি।

সেদিন সারা দেশে নির্বাচনের নামে মানুষকে ধোকা দেয় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ সরকার। ভোট কেন্দ্রে গিয়ে মানুষ ভোট দিতে পারে নাই। জনগনের ভোটাধিকার গনতন্ত্র হরন করে রাতের আধারে ভোট জালিয়াতি করেছে বলে নানা মহলে এ অভিযোগ।

গত ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং সনে অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কর্তৃক ভোট জালিয়াতি ও অনিয়মের প্রতিবাদ সভা থেকে ফেরার পথে ছাত্রলীগ কর্মীদের হামলার শিকার হন ওসমানীনগর উপজেলার তাজপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা বিশিষ্ট সমাজসেবক ও স্থানীয় তাজপুর বাজারের ব্যবসায়ী আব্দুন নুরের পুত্র মোঃ সাহেদ আহমদ। এতে তিনি গুরুত্বর আহত হলে স্থানীয় এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান।

জানা যায় গত ০৫ জানুয়ারী ২০১৯ ইং সনে, ওসমানীনগর উপজেলার তাজপুর ইউনিয়নের কদমতলা বাজার পয়েন্টে একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সরকার কর্তৃক ভোট জালিয়াতি ও ভোটকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন অনিয়মের প্রতিবাদে স্থানীয় সাধারণ নাগরিকের ব্যানারে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। এতে এলাকার বিভিন্ন সামাজিক সংঘগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রম-পেশার মানুষ অংশগ্রহন করেন। এতে বক্তারা এ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচর ও অংগ্রহনযোগ্য নির্বাচন বলে উল্লেখ করে আওয়ামীলীগের কঠোর সমালোচনা করেন।