raising sylhet
ঢাকাবুধবার , ১৯ জুন ২০২৪
  • অন্যান্য
  1. অর্থনীতি
  2. আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আরো
  5. খেলার খবর
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. দেশের খবর
  10. ধর্ম পাতা
  11. পরিবেশ
  12. প্রবাস
  13. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  14. বিজ্ঞান প্রযুক্তি
  15. বিনোদন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শান্তিগঞ্জ উপজেলায় দ্রুত গতিতে বাড়ছে পানি

rising sylhet
rising sylhet
জুন ১৯, ২০২৪ ৫:৪১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

শান্তিগঞ্জ উপজেলায় দ্রুত গতিতে বাড়ছে পানি৷ বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হওয়ায় নতুন করে পানিতে ভাসছে গ্রামের পর গ্রাম। দেখা দিয়েছে বড় ধরনের বন্যার আশঙ্কা।

পাহাড়ি ঢলের সাথে সমালতালে ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকায় পানি হুহু করে বাড়ছে। ফলে নিম্নাঞ্চল ইতিমধ্যেই প্লাবিত হয়েছে।

একের পর এক দুর্যোগ দিশেহারা করে দিয়েছে হাওর পাড়ের মানুষদের। বসতবাড়িতে পানি উঠে চরম বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। পানিবন্দি মানুষের মাঝে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বুধবার (১৯ জুন) সকাল পর্যন্ত বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়ে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট ডুবে যাওয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। নিরাপদ আশ্রয়ের আশায় ছুটছেন বানভাসীরা৷ ধান, গবাদি পশু যেন গলার কাটা হয়ে দাড়িয়েছে বন্যার্তদের। উপজেলার বেশ ক’টি ইউনিয়নে পানি বেড়ে গিয়ে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

উপজেলার বাসিন্দারা জানান, অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের পানি দ্রুত গতিতে ঢুকছে। এতে উপজেলার সবকটি ইউনিয়নে পানি উঠে প্লাবিত হয়েছে। রাস্তাঘাট ও বাড়িঘরে পানি উঠে আতঙ্কের মাঝে রয়েছি।

আব্দুল কাহার নামের একজন বলেন, শান্তিগঞ্জের বিভিন্ন এলাকার বাড়িঘর ও রাস্তাঘাটে বন্যায় প্লাবিত। পানিবন্দি মানুষ ডুবে যাওয়া কাঁচা বাড়িঘর ও গৃহপালিত পশু নিয়ে বিপাকে পড়েছেন। বন্যায় পুকুরের মাছ ঘরবাড়ি সব ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। অনেক গ্রামের ঘরবাড়ি পানিতে ডুবে আছে।

পানিবন্দি একাধিক ব্যক্তি জানান, বসতঘরে পানি উঠে গেছে। জরুরি কাজ থাকা সত্ত্বেও কোথাও বের হওয়া যাচ্ছে না। রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় নৌকা দিয়ে পার হতে হচ্ছে। পরিস্থিতি খুব খারাপ। যেভাবে পানি বাড়ছে আল্লাহ ছাড়া এই দুর্যোগ থেকে রক্ষা করার কেউ নাই।

এদিকে, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সকলকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সাবধানতা অবলম্বন ও সকলকে সতর্ক অবস্থানে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুকান্ত সাহা।

তিনি বলেন, সার্বক্ষণিক বন্যা পরিস্থিতির খবরাখবর রাখছি। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে শুকনো খাবার ও ত্রানের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। প্রত্যেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে বলা হয়েছে বন্যার তথ্য দেয়ার জন্য। আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত আছে, যাদের বাড়িঘর পানিতে ডুবেছে তাদের দ্রুত আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে বলা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক নূর হোসেন বলেন, এই দুর্যোগ মুহুর্তে সবাইকে সতর্ক থাকার পাশাপাশি যেকোন প্রয়োজনে যোগাযোগ করার আহবান জানিয়েছেন।

২২ বার পড়া হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।