সম্পর্ক ভেঙে দেওয়ায় এসিড নিক্ষেপ : প্রেমিকার মৃত্যু

মে ১৫ ২০২২, ১০:৫৪

রাইজিং সিলেট ডেস্ক: প্রেমিকের ছোড়া এসিডে দগ্ধ চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বেতাগী ইউনিয়নে ইয়াছমিন আকতার (২০) মারা গেছেন। নয় দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে শনিবার (১৪ মে) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে মারা যান তিনি।

ইয়াসমিনের মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুব মিল্কী।

তিনি বলেন, সাবেক প্রেমিক সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক মো. আজিমের ছোড়া এসিডে দগ্ধ হয়েছিলেন ইয়াসমিন। প্রথমে চট্টগ্রাম মেডিকেলে চিকিৎসা দেওয়ার পর তাকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। আজ বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে তার মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার দিন রাতেই ইয়াসমিনের সাবেক প্রেমিক সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক মো. আজিমকে (৩০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে রাঙ্গুনিয়া থানায়। আজিম বর্তমানে কারাগারে।

গত ৫ মে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বেতাগী ইউনিয়নে ইয়াছমিন আকতার নামে এক তরুণীকে এসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ইয়াসমিনের সাবেক প্রেমিক সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক মো. আজিমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ঘটনার পর ওসি মাহাবুব মিল্কী বলেছিলেন, ইয়াছমিন আকতারের সঙ্গে আসামি আজিমের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। একপর্যায়ে ইয়াছমিন জানতে পারে আজিম বিবাহিত এবং তার সন্তান রয়েছে। তারপর থেকে তাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়। ৪ মে দিনগত রাত সাড়ে বারটার দিকে আজিম ইয়াছমিনের সঙ্গে দেখা করে কথা বলতে যায়। এসময় ইয়াছমিন ও আজিমের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এরই একপর্যায়ে রাত ২টার দিকে ঘরের জানালায় থাকা ইয়াছমিনকে লক্ষ্য করে এসিড নিক্ষেপ করে আজিম পালিয়ে যায়। এতে ইয়াসমিনের মুখ, গলা ও বুক ঝলসে যায়। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

তিনি বলেন, ঘটনার দিন রাত তিনটায় ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সবকিছু শুনে অভিযান পরিচালনা করে চন্দ্রঘোনা এলাকা থেকে আজিমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ইয়াছমিন আকতারের ভাই আবু তাহের বাদী হয়ে রাঙ্গুনিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

 

 

 

রাইজিংসিলেট / আল-আমিন