সিলেটে বন্যা কবলিত ৬০০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা, পেছাল শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

মে ১৯ ২০২২, ০৯:৩৮

রাইজিং সিলেট প্রতিবেদক: উজানের পাহাড়ি ঢল আর ভারী বৃষ্টিপাতে সিলেট জেলার ৬৭৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত এসব প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ থাকবে। বুধবার রাত সোয়া নয়টার দিকে শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তারা এ তথ্য দিয়েছেন।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় সিলেটে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাখাওয়াত এরশেদ জানান, ২০ মে সিলেটে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক নিয়োগে দ্বিতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। ওই পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। এ পরীক্ষা আগামী ৩ জুন অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলায় ১ হাজার ৪৭৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৪১৫টি বিদ্যালয় পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এর বাইরে যেসব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে, সেগুলোতেও পাঠদান বন্ধ রাখা হয়েছে। জেলার গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট, জৈন্তাপুর, জকিগঞ্জ ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় সবচেয়ে বেশি বিদ্যালয়ে পানি ঢুকেছে।

সিলেটের জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলায় মোট ৬০৭টি উচ্চবিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রাসা রয়েছে। এর মধ্যে বন্যাকবলিত হয়েছে ২২২টি। এর মধ্যে বন্যায় পাঠদান বন্ধ রয়েছে ১৮৫টিতে। এর বাইরে ৭৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হওয়ায় সেখানেও পাঠদান বন্ধ আছে। বন্যায় এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মোট ১ কোটি ৪৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবু সাঈদ মো. আবদুল ওয়াদুদ জানান, বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকবে। যদি নতুন করে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্লাবিত হয়, তবে সেগুলোও বন্ধ রাখা হবে।

 

 

 

 

রাইজিংসিলেট / আল-আমিন